জীবন এমন ও অন্যান্য ॥ সালমা খান রানু



জীবন এমন

কেন ভালোবাসা নিঃসঙ্গতায় ভোগে?
কেন হেঁটে যায় সামনে দিয়ে চাবুক আস্ফালনে?
নিঃসঙ্গ ভালোবাসায় ভেসে বেড়ায় একা চাঁদ –
চাঁদও কী নিঃসঙ্গ?
হয়তো হবে!তা না হলে কেনই বা সঙ্গী হবে আমার?
গ্লোবাল নেটওয়ার্কে সংযুক্ত থেকে থেকে একদমই
ক্লান্ত হয়ে নিঃসঙ্গতার সঙ্গী হতে ভালোই লাগে-
এমন জীবন আমি কখনো চাইবো না যেখানে অপেক্ষা নেই-
এমন জীবন একদমই চাই না যেখানে সংগ্রাম, প্রতিবাদ কিংবা সত্য নেই-
জীবনের চাহিদার সারিতে ভীড় করুক সুগন্ধি যতশত ফুল-
এমন একটি জীবনের স্বপ্ন আমাকে তাড়া করে
যেখানে ভালোবাসার দুটি হাত বাড়িয়ে বলবে-
জীবনে জন্য একটা সুগন্ধি ফুল-
এই জীবন শুধু তোমাকেই বলবে ‘ভালোবাসি’।


অস্বীকৃত আইন

রাত্রির রূপজালে সবই বদলে যায়,
রঙমশাল তুলে বিচিত্র সব ছবি এঁকে এঁকে
নিমজ্জিত থাকে গভীর কোন শোক বা আহত স্মৃতির অন্তর্জালে-
কেমন গাঢ় আর স্যাতস্যাতে মাটিতে পা মাড়িয়ে হেঁটে যায়-
পায়ের ছাপে ছবি আঁকা থাকে মাটির গভীরে-
রাতেরা কানামাছি খেলে,
মানুষ বাঁচে মরিচীকার স্বর্গে,
শুধু নিশাচর পাখিগুলো সঙ্গীহীন সময় কাটায়-
কবিরা লিখে যায় এক একটা প্রেম, বিরহ বা প্রতিবাদের কথা-
এইসব কথা গুলো শুধু বইয়ের পাতায় মুখ লুকিয়ে থাকে-
কবিরা লিখে যায় অস্বীকৃত আইনের প্রতিলিপি।


নতুন ভুলে

যখন আবার পৃথিবীতে বৃক্ষ জন্মাবে তখন
আমরা আসবো পৃথিবীর আদিম মানুষ হয়ে-
পাহাড় চূড়ায় ঝর্ণার মতো বুকে রবো ঘাপটি মেরে-
এক জীবনে যত অপূর্ণতা ঘুছিয়ে নেবো আরেক জীবন পেলে।
একই সময় জন্ম নিবো
দুঃখ, ভোগে, সুখে শঙ্কায় পাশে রবো?
তখনও আমি গ্রামীণ হবো, ঝিলের জলে শাপলা হবো,
শ্যাওলা পরা নৌকোই চড়ে পায়ে জোঁক গেঁথে বাড়িতে যাবো?
আমি তখনও এমনই রবো,
ডানপিটে আর একরোখা মেয়ে,
নালিশ বাড়ি আসবে রোজই।
তোমার শহরে ভীড় জমাবো, হাবাগোবা গ্রামীণ হয়ে-
তখন সমান বয়স নিয়ে প্রেমে পড়বো,
ঘরটা তখন আমার হবে,
ঝগড়া বিবাদ সবই রবে,
ভুলে ভরা জীবন নিয়ে সব ভুল থাকবে ঠিকই
তবে একটা ভুল শুধরে নিবো-
আরেকটা জীবন জুড়ে তোমার শুধু আমিই হবো।