তিন মিনিটের কবিতা ॥ সাইফুল্লাহ মাহমুদ দুলাল

তিন মিনিটের কবিতা

৪৭.

অনন্ত অবসরে যাবার আগে, আপনার সাথে এক কাপ
দীর্ঘ ঘুমের আগে, আপনার সাথে এক বিছানায়
না ফেরার দেশে যাত্রার আগে, আপনার সাথে একবার
সকল প্রস্তুতির আগে, আপনার সাথে এক সুরে
সূ্র্য ডুবার আগে, আপনার সাথে এক নদীতে
শেষ স্নানের আগে, আপনার সাথে এক টাওয়ালে
সূতো ছেড়া ঘুড়ি দেখতে দেখতে, আপনার সাথে এক আকাশে
হিমঘরে ঢোকার আগে, আপনার সাথে এক চাদরে
তীর্থযাত্রার পূর্বে, আপনার সাথে এক মলাটে
বৃষ্টিভেজা বিদায়ে, আপনার সাথে এক ছাতায়
মুগ্ধ মাদাম তুসো দেখার আগে, একবার আপনাকে
বিচ্ছিন্ন হবার আগে, আপনার সাথে যৌথ-যুগল
হারিয়ে যাবার আগে, আপনার সাথে এক ঋতুতে
পরবাসে পা দেয়ার আগে, আপনার সাথে এক রাত্রি…

নভেম্বর ১৮, ২০১৯, টরন্টো

৪৬.

মালিক পক্ষের সাথে ইউনিয়নের নেতাদের হাত মেলানো আঁতাতের রাতে
শ্রমিক সঙ্গমে শিথিল হয়ে কেঁদেছিলো,
টিনের চালে ছিলো বৃষ্টি।
অথচ সে জন্মক্ষণেও কাঁদেনি;
হেসেছিলো, অদ্ভুত প্রথাবিরোধী।

এখনো গায়ে মাছের গন্ধ; জলঘ্রাণ
জালের আকর্ষণ।
মৃত্যুপূর্বে মা জানিয়েছিলো:
‘তোর জন্মে একটু ঝামেলা আছে। তোর রক্তস্রোতে এতো নদীর নেশা-
তুই জেলে হলে ভালো করতি’।

অথচ সংসারে কোনো ট্রেড ইউনিয়ন নেই,
টিনঘরে আছে শুধু বৃষ্টি।

ডিসেম্বর ১৪, ২০১৯, টরন্টো


৪৫.

আমাদের এখন পরষ্পর দেহদান করবো।

দান, অনুদান করার মধ্যে আনন্দ
সেবা এবং মহত্ব।
মহৎ হয়ে উঠি নির্মল বাতাসের মতো।

ঢাকা মেডিকেলে চক্ষু দান করেছি,
এবারের পর্ব পরষ্পরের দেহদান।
অথবা জায়নামাজে সেজদা

পুজা-প্রার্থনা পর আমরা ঋণে রচনা করবো
নক্সি জীবন!

নভেম্বর ০৪, ২০১৯, টরন্টো