নভেরা হোসেন এর কবিতা


রাত্রি

রাত্রি অনেক হলো
পাতারা ঘুমিয়ে পড়েছে
একটানা ডেকে চলেছে নাম না জানা পাখি
লোকালয় নিঝুম
দীঘির জলে চাঁদ ভেসে আছে
সবাই ঘুমিয়ে
তোমার মনে অনেক কথা
সব হারিয়ে যাচ্ছে বাতাসে
রাত্রি অনেক হলো ঘুম নাই চোখে
দরজায় প্রহরী


অবসেশন

কখনো কখনো নিজেকে শীতের রুক্ষতার মতো মনে হয়
যা চাচ্ছো, যাকে চাচ্ছো সব দূর কুয়াশা
তবু কামনা করো এমন কিছু যা তোমার নয়
শীত যত বাড়তে থাকে
এইসব এলোমেলো অনুভূতি তত চেপে বসে
সন্ধ্যার ঘন শীতে
একটা বাদামি পুলওভার জড়িয়ে
ভিড়ের বাসে নিঃসঙ্গ বোধ করো
অসংখ্য মানুষ এবং তাদের মুখচ্ছবি
অবসেশনের মতো গেঁথে থাকে মনে…


পপি ক্ষেত আর স্কারলেট ফুল

উপরের তলায় একটা দোকান
নিচে ক্যাফেটেরিয়া
কিছু কিনবো ভাবছিলাম আমরা
রেশম পোকা ঘুরে বেড়াচ্ছিল ভেতরে
কাঁচ দিয়ে ঘেরা ঘর
বাঁকা চাঁদ আকাশে
আমরা সময়কে ছুঁতে পারিনা
সময় আমাদের…
নৈঃশব্দ্যের ধ্বনিকে ছুঁতে পারে একমাত্র
নিস্তব্ধতা