প্যালেস্টাইনের কবিতা ॥ তারেক আল কারমি



ধোঁয়াটে সকালের রাত
(The smoky morning night)

ঘুমিয়ে নাও যখন পিয়ানো ঘুমায়
এর শ্বাস বাসগৃহ থেকে
একটি কোণে স্থির হয়
আমি তা মাটিতে রাখব
আরোহণের জন্য
তোমার উপর
হতাশার শ্বাস বেরোয় পিয়ানো থেকে
স্টাফ লাইনে
স্টাফ লাইন দেখতে যেন
রেলপথ যা তোমাকে অতিক্রম করে
এই ধোঁয়াটে সকালে।


সূর্যাস্তে মরে যেতে আমি একটা স্বপ্ন চাই
(I want a dream to die in the sunset)

যেখানে গোধূলি এক পরম শুঁড়িখানা
আমি গোধূলিখানায় মারা যেতে চাই
এবং আমার ঘোটকীর কাছে; যে এক তাওবাদী পৃথিবী চালাচ্ছিল
আমার ঘোড়ায়, যার চুল আর খোঁপা আছে
আমি একদিন ভালোবেসেছিলাম
আমাকে আমার পরম উপাদেয় মৃত্যু দাও।


মুহূর্তটি উষ্ণ-শীতল
(The moment is a warm cold)

কান্নারত মেঘ আর দুধের বৃষ্টি থেকে
তোমার স্নান গ্রহণে
অঝোর বৃষ্টি আমাদেরকে পাতার নিচে
কবর দেবে হাঁটু পর্যন্ত
আমি আজ রাতে কুমারী তোমাকে ধারণ করবো
যেখানে লোহা এবং নলখাগড়া নরম হয়
এটা আমার সময়ের দ্বারে জীবনের বকবকানি
এসো, আমার বাড়ির পাথরগুলোর সৌরভের জন্য
শীতল হও ঘোড়ার দাঁতের মতো
এসো।
তুমি আমার অগ্নিচুল্লি
এবং আমার হাড়গুলো জ্বালানীর কাঠ।




তারেক আল কারমি (Tareq al Karmy), ফিলিস্তিনি কবি। জন্ম ১৯৭৫ সালে, ফিলিস্তিনের উপকূলীয় শহর টোলকারিমে। পেশা বাঁশি বাজানো ও শেখানো। ফিলিস্তিনি রেডিও-র জন্য অসংখ্য অনুষ্ঠান তৈরি ও উপস্থাপন করেছেন। ফ্রান্সের দক্ষিণে ভূমধ্যসাগরীয় ভয়েসেস ফেস্টিভালসহ বেশ কয়েকটি স্থানীয় এবং আন্তর্জাতিক সংগীত উৎসবে অংশ নিয়েছেন। বামপন্থী-প্রগতিশীল আদর্শের এই কবির কবিতা বিভিন্ন ভাষায় অনূদিত হয়েছে। তার একাধিক কবিতার ব্ই প্রকাশিত হয়েছে।
আল কারমির কবিতাগুলো শেষ না হতেই শেষ হয়ে যায়, যা কবিতায় ইচ্ছাকৃতভাবে বাধা সৃষ্টি করে, পাঠককে কবিতার শেষ পর্যন্ত নিযুক্ত করে এবং তার কল্পনার জন্য স্থান রেখে দেয়। এটি আল কারমির কবিতায় একটি অনন্য এবং অসামান্য ধারা হিসাবে চিহ্নিত। যা তাকে সমসাময়িক ফিলিস্তিনের কবিতার অন্যতম আকর্ষণীয় তরুণকণ্ঠে পরিণত করেছে।

রূপান্তর : মাসুদুল হক (Masudul Hoq)