ভুল বোঝাবুঝি ও অন্যান্য ॥ স্বরূপ মণ্ডল

ভুল বোঝাবুঝি

আলোর মানুষ বোঝে অন্ধকার ভাষা
অন্ধতা জরুরি নয় বোঝো একটিবার

ভেবেছো আদেশ করেছি
তাই প্রত্যুত্তর করোনি
একবারও ভাবোনি দুমহাদেশের ফারাক…

উচ্চতা তোমার আঁচলে
আমি না হয় আঁচলের খুঁট
কাঠবিড়ালির মতো আঁকড়ে গিট
মুখ আর চার পা
অথবা তোমরা সভ্য মানুষীরা
যা গেয়ে সুখ পাও
সেই সব খোলার চেষ্টা করি
খোঁপার বাঁধনে

আলোর আকাশ ভুলে ঘুমাই নিভৃতে
আঁধারে অন্ধতা মেখে…


মুখোশ

পারোতো শিখে নাও প্রকৃতির কাছে—
হেরে যাওয়ার সুখ

জ্বলে যায় ছাওনি—
মাড়িয়ে চলে মই—
চিরে গ্যাছে যায় আজও পাকা ধানের ক্ষেত
এসব দেখে দেখে ক্লান্ত তারুণ্য

আমি ভূমিপুত্র
তবু গোপন করি প্রকৃতি যাতনা

এভাবে ডেকোনা কোনো তন্ত্রসাধনায়
প্রায়শ্চিত্তে আছি আদিমতায়

এতোগুলো দিন কাটালাম
কিন্তু মুখ দেখতে পেলাম না…


প্রাচীনা

আর কোনোদিন থাকবও না
সে প্রেক্ষাপট নেই…

উড়ে যাচ্ছি নতুন কোনো গ্রহে
সেখানে হাতছানি দেয় ডাকে
আতিপাতি খুঁজে বেড়ানো মুখমণ্ডল
না পাওয়া মুখের আদল
যে ঘুরেফিরে জাগায় হত্যা করে নির্মমতায়…


জিয়নকাঠি মরণকাঠি হাতে তার
অতএব তার হাতে হত্যার অধিকার