মতিন রায়হানের তিনটি কবিতা

রাতের কাসিদা

প্রকৃতিতে নেমে এলে রাত মন ও শরীর খুব নাচে

কোজাগরি রাতের বন্দনা মিলনের পূর্ব রাগে;
জাগে পাখি, পাখির কল্লোলে ভেসে যায় রাত
প্রহরে প্রহরে গুঞ্জনের ধ্বনি, কে হারায় গোপন
গুহায়? গুহাগাত্রে কথা বলে মানুষের আদি
ইতিহাস, জীবনপ্রণালি! খনন করেছে কারা
গুহাগৃহ? শব্দে-ছন্দে বাজে মিলনের সুর! সেই
আদিমতা জীবনের চিরসত্য জানি। মানুষের
অভিধানে কী এমন ভুক্তিশব্দ আছে, যা দেখে
টাটায় চোখ কোনো উদ্ভিন্ন যৌবনা! কাকে তবে
ডেকে আনে একান্ত গোপনে? মেলে ধরে সৌন্দর্যের
ষোলোকলা! অতঃপর গভীরে তলিয়ে যায়, যায়
কোনো এক ঘূর্ণাবর্তে…দিবস বিবাদ জুড়ে দেয়
রাত্রি সঙ্গে! বলে : তুই বড়ো লোভাতুর, গিলে খাস
অস্থিমাস, প্রেমিক জীবন তবে কী করে যে বাঁচে!

প্রকৃতিতে নেমে এলে রাত মন ও শরীর খুব নাচে!
২৩.০৮.২০২০

পাখিসম মন

পাখিসম মন ওড়ে আর ঘুরে জলে ও জঙ্গলে একা

কে মানায় পোষ? অচেনা পাখির ডাকে কেঁপে ওঠে
বুক, হৃদয়ের গভীর সংবেদন! সবুজ বৃক্ষের কাছে
পাহাড়ের আছে নিবেদন; সমুদ্রের নীল জলে যারা
ভাসে, তারা খুঁজে পৃথিবীর ভূগোলের আদি-অন্ত,
সীমারেখা। কিন্তু মনোভূমি পড়ে থাকে অনাবিষ্কৃত,
দূর-অচেনা! প্রশ্ন তোলে যারা, তারা যায় বহুদূর…
প্রশ্ন থেকে উঠে আসে গোপন সন্দেশ; কেবল প্রশ্নই
দিতে পারে দীক্ষা জৈমিনির মীমাংসার। তাই আমি
প্রশ্নে প্রশ্নে ঘুরি বনে-বনান্তরে, মনে-মনান্তরে; জন-
অধ্যুষিত হাটে-লোকালয়ে। নদীর জলের থেকে
আমি নিই জলশিক্ষা, বয়ে চলা গতিসূত্র, পাঠপর্ব
শেষে মানুষের বুকের ভিতর গেঁথে দিই প্রেমের
কাসিদা! সজল মেঘের কাছে জমা রাখি কৃষিজাত
পুণ্য স্বপ্নবীজ; এমনি করেই রোজ পৃথিবীকে দেখা!

পাখিসম মন ওড়ে ও ঘুরে জলে ও জঙ্গলে একা।
২৪.০৮.২০২০


বাঁচার আনন্দ

বেঁচে থাকাটাই মূলকথা। এর চেয়েও আনন্দ? নেই।

প্রকৃতিতে প্রাণ আছে, আছে হৃদয়মথিত প্রেম! এই
যে পথের পাশে ফুটে আছে কল্লোলিত কলাবতী
এ তো প্রেমেরই নম্র আবাহন। ভোরের সূর্যের কাছে
রোদ চেয়ে যখন হবে না বিমুখ, তখন নদী এসে
তোমাকে শোনাবে গান ইমনকল্যাণ রাগে; প্রত্নগুহা
থেকে ঠিকরে বেরোবে আলো; গুহায় বসতি কার?
যারা গুহাবাসী তারা তো স্বজন আমাদের। আমরা
তাদের উত্তরাধিকার। প্রজন্মে প্রজন্মে বন্ধনের গল্পে
হেসে ওঠে স্তনফুল, সুরভি ছড়ায়… চুম্বনের তীব্র
আলোড়নে যদি ভূকম্পন অনুভূত হয়, তবে অযথা
খোঁজো না রিখটার স্কেল! আনন্দ এমন প্রভাবক
হতে পারে! তোমার ঠোঁটের কোণে যদি সদ্যফোটা
চাঁপা দেখি তবে আমিও ডুবসাঁতারে ভুবন ভাসাবো!
ঘূর্ণিস্রোতে যে হারায়, হারাক; আমি তো নাচি ধেইধেই!

বেঁচে থাকাটাই মূলকথা। এর চেয়েও আনন্দ? নেই।
০৭.০৯.২০২০