লাকীমনি দেবনাথ এর কবিতা


জানিনা কেন-১

জানিনা বুকে কেন চিন চিনে ব্যথায় মরি-
কি যে চাই, আর কি কী-ই বা চাইতে পারি?
যেখানে শেষ কথা বলা হয়ে যায় শুরুর আগেই
সেখানে পথ চলা হবে বন্ধুর তা তো জানি।

আমার নির্ঘুম রাত আর তোমার অসীম ক্লান্তি
এভাবেই সময় রয়ে যায়, আগামীর আশায়-
যদি তুমি দাও ভরসা সহজ এই পথচলা
না হয় আমার পথ, যন্ত্রণায় ছটফট
মন মরে প্রাণ কাঁদে বিষণ্ন, কোলাহলে।

তাই-
যদি নাও আপন করে মনের মাঝে এই আমাকে
মরণে শান্তি মেলে, ভালবাসা দিও তাই মরণে আমাকে।


জানিনা কেন-২

জানিনা কেন এমন হলো
ভালোই ছিলাম নিজের মাঝে নিজের মতো-

গলিয়ে তুমি গড়েছ আমায় তোমার মতো
দিয়েছ প্রাণ আমাতে, তারপর তা নিয়েছ কেড়ে।

এখন আমি যাই যে কোথায়!

ফেলে দিলে তুমি, আমার প্রাণ তোমার কাছে রেখে।
এখন আমি কি’যে করি, পাই না ভেবে।

মাথা খাও পায়ে পড়ি, কথা দিলাম
জ্বালাতন করব না আর
থাকবো তবে দেখবে না কেউ।

তোমার জন্য অবুঝ আমি
কিছুই তো চাই না আমি
একটু ভালবাসা দিও।


তোমার হাতে

সফল তুমি, চাও আরো সফলতা
তবে তা-ই হোক, পূর্ণ তোমার এই চাওয়া,

সহজ আমি, নাই কোনো এগিয়ে চলা
কেনই-বা চাইবে আমাকে, নেই কোন সম্ভাবনা।

সবাই করে সফলতার হিসেব নিকেশ
আমার কেবল ভালোবাসার লেনাদেনা।
তবে তা মিলবে কেন
খেরোখাতার এই হিসেব কোনভাবেই মেলানো যায় না।

সফল তুমি প্রেমের এই খেলাঘরে
বিফল আমি মন দিয়েছি, প্রাণ হারিয়ে।

এখন আমি দিকভ্রান্ত পাগলপারা
তুমি যদি নিতে আমায়, বেঁচেই যেতাম
এবার আমি তোমার হাতে।