সালাম ফারুকের ছড়া

পাগল

এই দুনিয়া পাগলবোঝাই
পাগল ছাড়া সব স্থবির,
পাগল যদি না হয় তবে
কলম চলে কি কবির?

কেউ যে পাগল ভবের মায়ায়
কেউবা আবার হয় ভাবের,
কেউ যে পাগল ভালোবাসার
লক্ষ্য কারো রয় লাভের।

কারো আবার পাগলামি যে
পরের তরে জান দিতে,
কারো বিপদ দেখলে তাদের
যায় দেখা যায় কান্দিতে।

অনিয়ম আর দুর্নীতিরই
সুযোগ পেয়ে কেউ পাগল,
দিনে-রাতে ঘুম যে হারাম
মেলায় শুধু ঘুষ-‘পাজল’।

দেশের মায়ায় পাগল যারা
তাদের তো নেই ক্ষমতা,
স্বার্থপরে সেই সুযোগে
দেখায় মিছে মমতা।

আসল পাগল পাগল না রে
খোঁজে মানে পৃথিবীর,
তারাই হলেন মহামানব
সত্যিকারের নীতি-বীর।

সেলফি

দামী দামী ক্যামেরা যে
লাগে না আর আজ,
লাগে না রে অন্য কারও
রেডি বলার কাজ।

মুখ বাঁকিয়ে আড় তাকিয়ে
মুঠোফোনে ঠিক,
আলতো করে চেপে দিলে
ওঠে দারুণ ‘পিক’।

ঘরে-বাইরে, হাট-বাজারে
নিশি কিবা দিন,
হেঁটে-বসে বা দাঁড়িয়ে
তুলছে নানা ‘সিন’।

ভাই-বেরাদার, বন্ধু-সখা
দেখা যদি পায়,
অ্যান্ড্রয়েডে হিসেব ছাড়া
ছবি তুলে যায়।

জ্ঞানী-গুণী, সেলিব্রেটি
কিংবা কোনো ‘ফ্রড’,
বাদ পড়ে না কেউ যে এখন
মন সবারই ‘ব্রড’।

কেউবা আবার ফেসবুকেতে
ছবি দিয়ে আপ,
তেলে ভাসায় মানুষটারে
যেন তারই বাপ।

নতুন যুগের পালে হাওয়া
সেলফি যে নাম তার,
বলো দেখি এমন বাতিক
হয়নি আজও কার?


অন্ধকার

ভালো থাকার মাঝে কী যে শান্তি,
এই কথাটা তোরা যদি জানতি,
তবে কি আর জীবনটারে
পাপের পথে টানতি?
হস যদি রে আমির কিবা রাজা,
সময়মতো ঠিকই হবে সাজা,
যা আছে সব হারাবি তো
থাকবি না রে তাজা।
গল্প লিখে সাজাস মন্দ কারে?
করিস আপন সারাক্ষণ ধোকা রে,
আখেরে ঠিক পড়বি ধরা
ডুববি অন্ধকারে।