কয়েকটি কবিতা ॥ শরীফ আস্-সাবের



পাশাপাশি

পথের প্রদীপ আলো পথেই ছড়ায়,
চাঁদের মোহন প্রভা ভুবন ভরায়!

মেলবোর্ন
১২ নভেম্বর ২০২০



বিষাদ সময়

আমার আকাশে আজ দুরাচার মেঘেদের বাড়ি,
অঝোরে বরিষ ঝরে, ভেঙ্গে যায় চাঁদনী পসর;
জবুথবু হয়ে রয় টিয়া রঙ পাখির শরীর,
আমার বৈভব, কান্তি কান্তারের ধূলিতে ধূসর।

আমার নদীরা সব নিস্তরঙ্গ, বিষাদ বিধুর,
জলকেলি ভুলে গেছে সোনারঙ মাছেদের ঝাঁক;
পানসী ভীরে না আর জীবনের শানবাঁধা ঘাটে,
উদাসী হৃদয়ে বাজে বিরহের করুণ বেহাগ।


মেলবোর্ন
৫ জুলাই ২০২০



আমার পৃথিবী

১.

এই পৃথিবীর রঙ রূপ সুধা, আলো ও আঁধার যত,
সবই তো আমার!
তাবৎ শহর, গ্রাম, ধূপছায়া মেঘলা আকাশ বাড়ি,
সবই তো আমার!
জ্যোৎস্নার মায়াবী পরশ আর ঘাসের শিশিরকনা,
সবই তো আমার!

সফেদ কাশের বনে লেজ ঝোলা পাখিদের উঁকিঝুঁকি,
সবই তো আমার!
মাচুপিচু আর মহেনজোদারোর প্রাচীন অভিজ্ঞান,
সবই তো আমার!
হিমালয় থেকে আল্পস, আমাজন থেকে সুন্দরবন,
সবই তো আমার!


২.

এই পৃথিবীর কাঁদা, মাটি, জল গায়ে মেখে আমি
আমি হয়ে উঠি,
পাহাড়ের মেয়েটির সাথে মিতালী পাতিয়ে আমি
আমি হয়ে উঠি,
সাগরের লোনা স্রোতে নিজেকে ভাসিয়ে দিয়ে আমি
আমি হয়ে উঠি।

লাল নীল মাছেদের সাথে জলকেলি করে আমি
আমি হয়ে উঠি,
রমনার মাঠে ঝরা পাতা কুড়াতে কুড়াতে আমি
আমি হয়ে উঠি,
বাস্তিল দুর্গ প্রাচীর আক্রোশে গুঁড়িয়ে দিয়ে আমি
আমি হয়ে উঠি।

সাহারার উষর মরু প্রান্তর পারি দিয়ে আমি
আমি হয়ে উঠি,
গহীন অরন্যে একা হারিয়ে পথের দিশা আমি
আমি হয়ে উঠি,
স্বৈরিণীর উদগ্র কামনায় আবিষ্ট হয়ে আমি
আমি হয়ে উঠি।


৩.

আমার পৃথিবী আমি করেছি সৃজন চুপিসারে – আমিই
আমার পৃথিবী!
আমার অস্তিত্বলোকে আমারই প্রতিভু হয়ে জেগে থাকে
পৃথিবীর মুখ,
সময়ের ক্যানভাসে গোধূলির ফাগে আমি তাঁর নিষ্কল
মানচিত্র আঁকি।

কত রূপে, মায়াজালে, আমাকে রেখেছে বেঁধে এ ঠুনক
পৃথিবী বিপুল,
তবু আমি জানি ঠিক, সব আশা, ভালবাসা হবে নির্বাণ
কোন একদিন –
শেষ হবে পৃথিবীর মূঢ় সম্ভার – ক্রমশঃ ধুসর হবে
পৃথিবী আমার!

সময় জানিয়ে দেবে সময়ের সীমারেখা, বিভ্রম কেটে
যাবে ক্ষনিকের –
বিপুল আধার এসে পৃথিবীর সোমত্ত আলো কেড়ে নিয়ে
যাবে নির্বিকার,
কালিক ঠিকানা হারা নির্বোধ আমি আচম্বিত হয়ে যাবো
ধুলিকনাসম।


মেলবোর্ন
২০ জানুয়ারী ২০২২